অনলাইন থেকে প্রতি দিন ১০০ থেকে ২০০ টাকা ইনকাম করার উপায়

আপনি এই প্রশ্নটির উত্তর পড়তে এসেছেন তার মানে আপনি আজ থেকেই ১০০ থেকে ২০০ টাকা অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চাচ্ছেন। অথবা আপনি এমন একটি কাজের উপায় খুঁজছেন যেখান থেকে প্রতি দিন ১০০ থেকে ২০০ টাকা ইনকাম করা যায়।

এই লেখাটি আপনাকে কিছু গাইডলাইন প্রদান করবে যার মাধ্যমে আপনি বুঝতে পারবেন কিভাবে অনলাইন থেকে প্রত্যেকদিন আয় করা যায়।

এবং আমি আপনাকে ১০০% গ্যারান্টি দিচ্ছি লেখাটি পড়া শেষ করার পর আপনি সঠিক ভাবে পদক্ষেপ গুলো নিতে পারলে অবশ্যই ইনকাম করতে পারবেন।

আলোচনা হবে দুই উপায়ে

  • আজ থেকে ১০০ থেকে ২০০ টাকা ইনকাম হয় এমন কত গুলো উপায় নিয়ে।
  • একটি নিদিষ্ট সময় যাওয়ার পর ইনকাম হবে এমন কিছু উপায় নিয়ে।

কিভাবে প্রতি দিন ১০০ থেকে ২০০ টাকা ইনকাম করবেন

মাইক্রো ওয়ার্ক ওয়েবসাইটঃ Picoworkers বর্তমান সময়ের তুমুল জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইট। সাইন আপ, ওয়েবসাইট ভিজিট, অ্যাপ ডাউনলোড, কন্টেন্ট মার্কেটিং, টুইট, রেডিট আপভোট, সার্ভে ইত্যাদি ছোট ছোট কাজ করে আপনি মাইক্রো ওয়ার্ক ওয়েবসাইট থেকে প্রতিদিন ১০০ টাকা বেশি অর্থ আয় করতে পারবেন। বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, সহ প্রায় কয়েকশ দেশের ওয়ার্কার এখানে কাজ করে।

কাজের যোগ্যতাঃ আপনাকে ইংরেজী পড়ে বোঝার ক্ষমতা রাখতে হবে।

কাজের রেটঃ কাজের ধরন অনুযায়ি কাজের মূল্য দেওয়া হয়। সর্ব নিম্ন ৩ টাকা থেকে ৩০, ৪০, ৫০ টাকা পর্যন্ত পাওয়া যায় প্রতি কাজের জন্য।

পেমেন্টঃ Picoworkers থেকে আয়কৃত ডলার Airtm একাউন্টে নিয়ে আসা হয়। তারপর Airtm থেকে বিকাশ একাউন্টে অর্থ নিয়ে আসা যায়। মিনিমাম পেমেন্ট ৫ ডলার।

জয়েনঃ Picoworkers ওয়েবসাইটে গিয়ে সাইন-আপ বাটনে ক্লিক করুন। আপনার নাম, ইমেইল, পাঁচওয়ার্ড, নিকনেম, দেশ, ইত্যাদি দিয়ে সাবমিট বাটনে ক্লিক করলে জয়েন শেষ। তারপর আপনার ইমেইলে একটি ম্যাসেস যাবে সেখান থেকে আপনাকে ইমেইল ভেরিফিকেশন করতে হবে। ইমেইল ভেরিফিকেশন হয়ে গেলে প্রোফাইল ইমেজ, জন্ম তারিখ, ভাষা সেটিং ( মানে আপনি কোন কোন ভাষা জানেন ), আপনার সম্পর্কে, ইত্যাদি বিষয় তথ্য দিয়ে প্রোফাইলটি সম্পূর্ণ করতে হবে।

নোটঃ আপনার Picoworkers ওয়েবসাইটের ইমেইল অ্যাড্রেস এবং Airtm একাউন্টের ইমেইল অ্যাড্রেস যেন একই হয়।

মাইক্রো ওয়ার্ক ওয়েবসাইট

ফেসবুকে ব্যবসাঃ ফেসবুকে ব্যবসা করে আজ থেকে ১০০ থেকে ২০০ টাকা ইনকাম করা সম্ভব। প্রথমে নিজের এলাকার মার্কেট ঘুরে ইউনিক পন্য ক্রয় করুন।

ক্রয়কৃত পন্য গুলো ফেসবুক পেজের মাধ্যমে প্রমোট করুন। দেখবেন আপনার পন্য ক্রয় করার জন্য মানুষ আপনাকে ফোন দিবে। তবে ইউনিক পন্য ব্যতিত নরমাল কমন যে পন্য গুলো সবসময় পাওয়া যায় এমন পন্য বিক্রি হবে না।

আপনি আরও একটি কাজ করতে পারেন। বিশ্বাসযোগ্য ই-কমার্স ওয়েবসাইট থেকে ইউনিক পন্য ক্রয় করে নিজের ফেসবুক পেজের মাধ্যমে বিক্রি করতে পারেন।

ফেসবুকে ব্যবসা করার জন্য অবশ্যই আপনাকে প্রোমোট করতে হবে। ফেসবুকে পন্য প্রোমোট করার জন্য অনেক পেজ পাবেন। যারা পন্য প্রোমোটের কাজ করে থাকে। ( সাবধান এদের মধ্যে অনেক প্রতারক থাকে )

ভালো হয় নিজের মাস্টার কার্ড থাকলে। আপনি চাইলে ভার্চুয়ায় মাস্টার কার্ডের অর্ডার করে নিজে ডলার লোড দিয়ে পন্য প্রোমোট করতে পারবেন।

রেফার করে ইনকামঃ অনেক অ্যাপ, ওয়েবসাইট, তাদের গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধি করার লক্ষে রেফার প্রোগ্রাম চালু করে। ধরুন আমার একটি অ্যাপ আছে, আপনাকে বলা হল আপনি অ্যাপটি ডাউনলোড করে আপনার ফোনে ইন্সটল করলে ১০০ টাকা পাবেন।

আবার আপনি যদি অন্য কোন ব্যাক্তিকে আপনার মাধ্যমে অ্যাপটি তার মোবাইলে ইন্সটল করাতে পারেন এর জন্য আপনাকে ৫০ টাকা দেওয়া হবে।

এই ধরনের আয় গুলোকে রেফার ইনকাম বলা হয়। যেমন কিছু দিন আগে বিকাশ এমন একটি রেফার প্রোগ্রাম চালু করেছি। একজনের রেফারে কেউ বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড করে জয়েন করলে রেফারকারী ৩০ টাকা পেতো।

এই রেফার প্রোগ্রাম সকল অ্যাপে থাকে না। যে সকল ওয়েবসাইট রেফার প্রোগ্রাম চালু করে তাদের খুঁজে বের করতে হয়।

রেফার ইউআরএলঃ প্রতি রেফারকারীর ভিন্ন ভিন্ন ইউআরএল আছে। যার মাধ্যমে আপনাকে অন্যকে জয়েন করার জন্য বলতে হবে।

আপনি আপনার সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে আপনার রেফার ইউআরএলটি পোষ্ট করবেন যদি কেউ সেই ইউআরএলে ক্লিক করে জয়েন করে তাহলে আপনি অর্থ পাবেন।

আপনার রেফার ইউআরএল সোশ্যাল মিডিয়া, ব্লগ, ইউটিউব, Quora, ইত্যাদি প্লাটফর্মে প্রমোট করতে পারেন।

বাংলা কন্টেন্ট লিখে আয় করাঃ আপনার লেখার দক্ষতা থাকলে খুব সহজে প্রতি দিন ১০০ থেকে ২০০ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। বাংলাদেশে অনেক ব্লগ সাইট কন্টেন্ট রাইটারদের কাজের জয়গা সৃষ্টি করে দিচ্ছে। যে সকল ওয়েবসাইটে আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারবেন।

প্রতিটি ব্লগ গুলো আপনি কিভাবে লেখা লিখবেন এবং জমা দিবেন সেই সম্পর্কে বিস্তারিত বলা থাকে। আপনি তাদের দেওয়া নিয়ম-নীতি অনুসরন করে কাজ করলে প্রতি সপ্তাহে ১০০০ থেকে ১৪০০০ টাকা আয় করতে পারবেন।

সাধারনত প্রতি ১,০০০ হাজার ওয়ার্ড আর্টিকেল লেখার জন্য ১০০ টাকা, ১৫,০০০ ওয়ার্ড আর্টিকেল লেখার জন্য ১৫০ টাকা এবং প্রতি ২,০০০ হাজার ওয়ার্ড আর্টিকেল লেখার জন্য ২০০ টাকা পেমেন্ট করা হয়ে থাকে।

আসলে অনলাইন থেকে ফ্রি অর্থ ইনকাম করা সম্ভব নয়। আপনাকে আপনার সময়, টাকা, দুইটি ব্যয় করে নিজেকে আয় করার জন্য প্রস্তুত করতে হবে।

যে সকল উপায়ে আয় করার জন্য সময় লাগে

এমন অনেক উপায় আছে যেখান থেকে ইনকাম করতে সময় লাগে। আপনি চাইলে আজকে কাজ শুরু করে কালকে থেকে আয় করতে পারবেন না।

এবং এই সকল উপায় থেকে ইনকাম শুরু হলে প্রতি দিন ১০০ থেকে ২০০ টাকা বেশি ইনকাম হবে গ্যারান্টি। আমি এমন কিছু উপায় নিয়ে কথা বলব।

ব্লগিংঃ ব্লগিং কথাটি হয়তো শুনে থাকবেন। আপনার একই ব্লগ সাইট থাকবে। যেখানে আপনি আপনার পছন্দের বিষয় বস্তু শেয়ার করবেন। আপনি যে সকল বিষয় শেয়ার করবেন মানুষ যখন আপনার শেয়ার করা বিষয় গুলো পড়বে তখন আপনি গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন। শুধু গুগল এডসেন্স নয় আরও অনেক উপায় আছে যেমন , ট্রাফিক শেয়ার, অ্যাফিলিয়েট, স্পন্সার পোষ্ট, পন্য বিক্রি ইত্যাদি।

ব্লগ সাইট বলতে আপনি যে লেখাটি পড়তেছেন তার মত একটি ব্লগ। আপনি যে কোন ডোমেইন, হোস্টিং কোম্পানি থেকে ডোমেইন এবং হোস্টিং ক্রয় করে ওয়ার্ডপ্রেস সেটাপ করবেন। ওয়ার্ডপ্রেস সেটাপ করার পর যে কোন ফ্রি থিম বা পেইড থিম দিয়ে ব্লগটি কাস্টমাইজ করবেন। কাস্টমাইজ করা শেষ হলে আপনার ব্লগ পোষ্ট লেখার জন্য প্রস্তুত।

অনেক মানুষ বলে ভাই আমি কি লিখবো আমি তো লিখতে পারি না। তাদের উদ্দেশ্যে বলি যে আপনাকে লিখে ব্লগ পোষ্ট করতে হবে কেন। আপনি চাইলে নদী-নালা, খাল-বিল, প্রকৃতি ইত্যাদি ছবি তুলে ব্লগে পোষ্ট করতে পারবেন।

ইউটিউবঃ আপনার হাতে থাকা অ্যানড্রেয়েড মোবাইলটি আয় করা উপায় হতে পারে। আপনি ইউটিউব চ্যানেল খুলে ইউটিউবিং করতে পারেন। প্রথমে ইউটিউবে গিয়ে ভিডিও ধারন, এডিটিং, এই সকল বিষয়ে ভিডিও দেখুন। এবং লাইভ প্রাকটিস করুন। আজ থেকেই ইউটিউব চ্যানেল শুরু করতে হবে এমন কোন বিষয় নেই। প্রথমে শিখুন তারপরে আপনি কাজ শুরু করুন।

সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সারঃ আপনি আপনার সোশ্যাল ওয়েবসাইট ফেসবুক, ইনন্সটাগ্রাম, টুইটার, টিকটক ইত্যাদি মাধ্যম থেকে আয় করতে পারবেন। তবে আপনার সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে যথেষ্ট ফলোয়ার থাকতে হবে। আপনি চাইলে আপনার প্রোফাইলে পন্য বিক্রি, অথবা অন্যের পন্য প্রোমোট করার মাধ্যমে আয় করতে পারেন। বর্তমানে ইনফ্লুয়েন্সার আয় করার অনেক উপায় আছে।

শেষ কথা

জানি না লেখাটি আপনাকে কতটা সহযোগিতা করবে। কিন্তু সত্যটা হল এমন কোন অনলাইন উপায় নেই যেখান থেকে আপনি আজকে কাজ শুরু আজ থেকে টাকা হতে পাবেন।

আপনাকে কাজ করতে হবে এবং ধৈর্য্য ধরতে হবে তাহলে আয় করা সম্ভব। আমি এমনটা বলছি না যে, প্রতিদিন ১০০ টাকা ইনকাম করা সম্ভব নয়। সম্ভব তবে ধৈর্য্য ধরে একটু কাজ শিখুন দেন আয় করার জন্য কাজ করুন।

ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

Click the above button to visit next page

You visited 1/10 pages

This div height required for enabling the sticky sidebar