ব্লগ টাইটেল লেখার নিয়ম ( বিস্তারিত )

বাংলা ভাষায় একটি প্রবাদ বচন আছে “আগে দর্শন ধারী, পরে গুন বিচারী” এই কথাটি এই ব্লগ টাইটেলের ক্ষেত্রে শতভাগ সঠিক। একটি ব্লগের টাইটেল লেখার নিয়ম গুলো এই লেখার মাধ্যমে তুলা ধরার চেষ্টা করব। আশা করছি এই লেখাটি পড়ার পরে টেইটেল লেখার ক্ষেত্রে অন্য কোন সমস্যা থাকবে না।

ব্লগ এবং ব্লগিং নিয়ে বিস্তারিত

বি.দ্রঃ ব্লগ টাইটেল লেখার নিদিষ্ট কোন নিয়ম নেই। তবে কিছু দিক নির্দশনা ফলো করলে একটি ভালো মানের টাইটেল লেখা সম্ভব। এই ভালো ব্লগ টাইটেল আপনার ব্লগের ভিজিটর সংখ্যা বৃদ্ধি করবে।

ব্লগ টাইটেল লেখার নিয়ম গুলো

  • ব্লগ টাইটেলের সাথে সংখ্যা যুক্ত করুন।
  • টাইটেলের সাথে কিওয়ার্ড যুক্ত করুন।
  • সমস্যা সমাধানের সহযোগিতা।
  • পাওয়ার ওয়ার্ড যুক্ত করুন।
  • একটি পোষ্টের জন্য অনেক গুলো ব্লগ টাইটেল লেখুন।
  • ব্লগ টাইটেলের ধরুন

ব্লগ টাইটেলের সাথে সংখ্যা

ব্লগ টাইটেলের সাথে সংখ্যা যোগ করলে ব্লগ পোষ্টের ভিজিটর সংখ্যা বৃদ্ধি পায়। এবং ব্লগের টাইটেলের মধ্যে সংখ্যা থাকার কারনে একজন ভিজিটর পোষ্ট সম্পর্কে একটি ধারনা পায়। ভিজিটর পোষ্টটি পড়লে বা ব্লগ পোষ্টটির ভিতির কি পাবে সেটা বুঝতে পারে।

যেমন,

১০টি নিয়ম ফলো করে একজন ভালো ছাত্র হওয়া যায়।

এখানে ১০টি নিদিষ্ট নিয়মের কথা বলা হচ্ছে যা ফলো করে একজন ভালো ছাত্র হওয়া সম্ভব। এবার অন্য একটি টাইটেল চিন্তা করা যাক একই বিষয়ের উপর।

ভালো ছাত্র হওয়ার নিয়ম গুলো।

এখানে ভালো ছাত্র হওয়ার নিয়ম গুলো কি কি বা কত গুলো হতে পারে সেই বিষয়ে বিস্তারিত কোন ধারনা নেই।

সাধারনত যে সকল ব্লগ টাইটেলের মধ্যে সংখ্যা যোগ করা থাকে সে সকল পোষ্ট বেশি সংখ্যাক মানুষ ভিজিট করে।

টাইটেলের সাথে কিওয়ার্ড যুক্ত করুন

কিওয়ার্ড হলে আপনার লেখার মূল বিষয় বস্তু। যেমন এই লেখাটির মূল বিষয় বস্তু হল ব্লগ টাইটেল। তাহলে ব্লগ টাইটেল হল এই লেখার কিওয়ার্ড। যা আমাকে ব্লগের পেষ্টটির টাইটেলের সাথে যুক্ত করতে হয়েছে।

বিষয়টি আরও ভালো ভাবে বর্ননা করা যাক একটি উদাহরন দিয়ে। ধরুন আমি একটি লেখ লিখবো “ছাত্রবস্থায় যে দক্ষতা গুলো অর্জন করতে হবে।”

এখানে মেইন কিওয়ার্ড হল “ছাত্রবস্থায় যে দক্ষতা গুলো অর্জন করা দরকার”। যদি সংক্ষিপ্ত ভাবে বললে “ছাত্রবস্থায় দক্ষতা” ।

এখন আপনি এই বিষয়ের উপর একটি টাইটেল নির্বাচন করতে হবে।

১০টি দক্ষতা ছাত্রবস্থায় অর্জন করা দরকার।

পড়ালেখার পশাপাশি যে দক্ষতা গুলো থাকা দরকার।

কি কি দক্ষতা ছাত্রবস্থায় অর্জন করা যেতে পারে।

ছাত্রবস্থায় কোন দক্ষতা গুলো চাকরি পেতে সহযোগিতা করবে।

উপরের টাইটেল গুলো লক্ষ করলে দেখবেন প্রতিটি টাইটেলের সাথে কিওয়ার্ড গুলো যুক্ত করা হয়েছে।

মোবাইল দিয়ে ব্লগিং করার জন্য যে অ্যাপ গুলো দরকার

সমস্যা সমাধানের সহযোগিতা করা

সকল পোষ্ট সমস্যা সমাধানের জন্য নয়। কিছু কিছু পোষ্ট আছে যে গুলো সমস্যা সমাধানের জন্য সার্চ করা হয়ে থাকে। যেমন ভালো ঘুম দেওয়ার উপায়। এটি একটি সমস্যা, কারন যে ব্যক্তি এই ধরনের কোন কিছু গুগলে সার্চ করছে তার মানে সেই ব্যক্তির ভালো ঘুম হয় না।

এই ধরনের পোষ্টের টাইটেলের জন্য আপনি লিখতে পারেন। যে ৫টি নিয়মে ১০০% ভালো ঘুম হবে। এখানে ১০০% ওয়ার্ডটি পোষ্টটি পড়ার জন্য থাকে উজ্জিবিত করবে একই সাথে সমস্যা সামাধানের সহযোগিতা করছে।

পাওয়ার ওয়ার্ড ‍যুক্ত করুন

একই ধরনের দুই জন দুইটি পোষ্ট লিখেছে। একজন পোষ্ট টাইটেলের সাথে পাওয়ার ওয়ার্ড যুক্ত করেছে অপর জন করে নাই। এতে করে যে ব্যক্তি পাওয়ার ওয়ার্ড যুক্ত করেছে সে এক ধরনের বিশ্বাস গ্রো করতে সমর্থ হয়েছে।

পাওয়া ওয়ার্ড বলতে “বিশেষন” ওয়ার্ড যুক্ত করাকে বুঝানো হয়েছে।

যেমন, অনলাইন থেকে আয় করার উপায়। অন্য দিকে “বিশ্বাসযোগ্য অনলাইন থেকে আয় করার উপায়” । এখানে বিশ্বাসযোগ্য কথাটি লেখাটির মধ্যে ভিন্ন ধরনের ভাব সৃস্টি করে।

একটি পোষ্টর জন্য অনেক গুলো ব্লগ টাইটেল লিখুন

একটি পোষ্ট তৈরি করার পর মেইন কিওয়ার্ড কে ফোকাস রেখে অনেক গুলো টাইটেল লিখুন। এই সকল টাইটেলের মধ্যে আপনার যে টাইটেলটি ভালো মনে হবে সেটি ব্যবহার করুন।

কখনো অন্যের ব্লগ টাইটেল কপি করে লিখবেন না। তার সাথে অবশ্যই কিছু যোগ বা বিয়োগ করে লিখবেন। চেষ্টা করুন সবার থেকে আপনার ব্লগ টাইটেলটি ভিন্ন লেখার।

মিনিমাম একটি পোষ্টের জন্য ৭টি থেকে ১০টি টাইটেল লিখুন। ৭টি থেকে ১০টি টাইটেলের মধ্য থেকে আপনার যেটা পছন্দ হবে সেটা টাইটেলের জন্য বাছাই করুন।

মাইক্রো ব্লগিং কি? বিস্তারিত

ব্লগ টাইটেলের ধরুন

অনেক ধরুনর ব্লগ টাইটেল আছে সকল টাইটেল নিয়ে আলোচনা করা সম্ভব নয়। আমি কিছু ব্লগ টাইটেল নিয়ে আলোচনা করছি যা আপনার কাজে লাগবে।

লিষ্টঃ লিষ্ট আকারের ব্লগ টাইটেল যেমন, ১০টি ডোমেইন এবং হোস্টিং কোম্পানি বাংলাদেশের, অথবা ২০টি ভালো মানের মোবাইল ফোন ২০২২ ইত্যাদি।

সুবিধা এবং অসুবিধাঃ যেমন, মোবাইল ফোন ব্যবহারের সুবিধা এবং অসুবিধা, ল্যাপটপের সুবিধা এবং অসুবিধা, মোটর বাইক ব্যবহারের সুবিধা এবং অসুবিধা, ইত্যাদি।

টিপস এবং ট্রিকঃ যে ১৮টি টিপস অফিসের প্রথম দিন আপনাকে সহযোগিতা করবে, যে ২০টি ট্রিক আপনার ব্যায় কমাতে সহযোগিতা করবে, পরীক্ষার সময় যে ১০টি টিপস কাজ করে, ইত্যাদি।

প্রাথমিক গাইডলাইনঃ যেমন, এসইও শেখার ক্ষেত্রে যে ১০টি বিষয় খেয়াল রাখা দরকার, ব্লগিং শেখার প্রাথমিক গাইডলাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার গাইডলাইন, ইত্যাদি।

প্রশ্ন মূলকঃ প্রশ্ন মূলক অনেক ধরনের টাইটেল হয় যেমন কিভাবে ভালো ব্লগ লেখা যায়, কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখব, কি কি বিষয়ে জানা দরকার ব্লগিং করার জন্য, কোমন করে ভালো রাইটার হওয়া যায়, ইত্যাদি।

টিউটোরিয়ালঃ ব্লগ পোষ্ট করার ধাপ সমূহ, ব্লগ টাইটেল লেখার নিয়ম, ফেসবুক মার্কেটিং শেখার টিউটোরিয়াল,ইনফ্লুয়েন্সার মার্কেটিং শেখার ধাপ সমূহ, ইত্যাদি।

শেষ কথা

ব্লগের টাইটেল একটি গুরুত্বপূর্ন বিষয় এটা আপনি আমি সকলে জানি। টাইটেল লেখার ক্ষেত্রে গুরুত্ব বহন করে টাইটেলের সাথে ব্লগের পোষ্টের লেখার।

আপনি টাইটেলে বললেন যে, আজকে হতে পারবেন কয়েক লক্ষ টাকার মালিক কিন্তু ভিতরে পাওয়া গেলে কিভাবে লক্ষ টাকা ব্যয় করা যায়। তাহলে কিন্তু হবে না। এতে করে ভিজিটরের মধ্যে একধরনের খারাপ অভিজ্ঞতার সৃষ্টি হবে।

আপনি টাইটেলে যা লিখবে আপনার লেখার মধ্যে যেন তাই থাকে। কাজের সাথে কথার যেন মিল থাকে। এতে করে আপনার ব্লগের বাউন্স রেট কমে যাবে।

Click the above button to visit next page

You visited 1/10 pages

This div height required for enabling the sticky sidebar